বাংলাদেশের পরবর্তি হেড কোচ সালাউদ্দিন, দুই বছরের চূক্তি!

শেষ হয়েছে বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ মিশন। সুপার এইটের শেষ ম্যাচে সেমি ফাইনালের কঠিন সমীকরণ মেলাতে পারেনি বাংলাদেশ। আসলে মেলাতে পারেনি নয় মেলানোর চেষ্টা করেনি শান্তা বাহিনী। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ হেরে সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই বলেন অধিনায়ক শান্ত।

যেটা ভক্ত সমর্থকদের ব্যাপক ভাবে কষ্ট দিয়েছে। চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রাপ্তি কেবল রিশাদ হোসেন। বাংলাদেশের কোনো ভালো মানের লেগ স্পিনার ছিল না। সেই আক্ষেপ হয়তোবা ফুরাচ্ছে। ৭ ম্যাচে ১৪ উইকেট শিকার করেছেন তিনি।

বাংলাদেশের বোলারা ‍দুর্দান্ত করেছেন এবারের বিশ্বকাপে। যদি ব্যাটার ৫০ শতাংশ সাপোর্ট করতো বোলারদের তাহলে এবারের বিশ্বকাপে ভালো কিছু হতো পারতো। কিন্তা ব্যাটারদের ব্যর্থতায় সুপার এইট থেকে লজ্জাজনক ভাবে ফিরতে হয়েছে বাংলাদেশকে। ব্যাটারদের সাথে কোচ হাথুর সিংহে ও নাজমুল হোসেন শান্ত’র অধিনায়কত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

চারে দিকে সমালোচনা হচ্ছে শান্ত’র অধিনায়কত্ব নিয়ে। এই বিষয়ে সামনে ২ তারিখ বোর্ড মিটিংয়ে বসবে বিসিবি। সেখানে সিদ্ধান্ত হতে পারে কোচ চন্ডিকা হাথুরু সিংহে ও নাজমুল হোসেন শান্ত’র বিষয়ে।

তবে যত দুর জানা গেছে চন্ডিকা হাথুরু সিংহের সাথে চুক্তি বাড়াচ্ছে না বিসিবি। আর তিন ফরমেটে অধিনায়কের দায়িত্ব থেকে ছেঁটে ফেলা হতে পারে নাজমুল হোসেন শান্তকে। এমনকি কোচন্ডিকা হাথুরু সিংহকে বহিষ্কার করতে পারে বিসিবি। তবে জানা গেছে ২০২৫ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করতে চান চন্ডিকা হাথুরু সিংহে।

তবে যত দুর জানা গেছে তাতে আগামীকাল বোর্ডে মিটিংয়ে সালাউদ্দিনকে কোচ করা প্রস্তাব রাখা হতে পারে। এই নিয়ে নিজেদের মধ্য আলোচনা করেছে বোর্ড পরিচালকরা। শুধু সালাউদ্দিন নয় লিস্টে আছেন আরেক বাংলাদেশের প্রভাবশালী কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন। তবে তাকে প্রস্তাব দেয়া তিনি সালাউদ্দিনকে করার কথা বলবেন জানা গেছে।

আগামী দুই বছরের জন্য সালাউদ্দিনকে কোচ হওয়ার প্রস্তাব দিতে চায় বোর্ড পরিচালকরা। অনেক তো বিদেশী কোচ দিয়ে চেষ্টা করা হলো কোনো ফল আসছে না। এবার তাই দেশি কোচদের সুযোগ দিতে চায় বিসিবি।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top